Buy this theme? Call now 01710441771
Welcome To Abc24.GA
.Jul 17, 2017

ব্রণের দাগ দূর করার প্রাকৃতিক প্রতিকার



ত্বকের ঔজ্জ্বল্য এবং সৌন্দর্য নষ্ট করে
দেয় ব্রণ। আমাদের ত্বকের তৈল গ্রন্থি
ব্যাটেরিয়া দ্বারা আক্রান্ত হলে এর আকৃতি বৃদ্ধি
পায় তখন এর ভিতরে পুঁজ জমা হতে থাকে, যা
ধীরে ধীরে ব্রণ পরিবর্তন করে ব্রণের
আকার ধারণ করে। সাধারণত টিনেজার মেয়েরাই
ব্রণের সমস্যায় বেশি ভোগে। ব্রণ
থেকে বাঁচতে কিছু উপায় অবলম্বন করুন।
বাজারের দামি কসমেটিক্স এর পরিবর্তে ব্যবহার
করতে পারেন কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি যা সহজেই
আপনার ব্রণ কমাতে সাহা্য্য করবে। আর
ঘরোয়া সামগ্রীই সবচেয়ে ভালো আর
নিরাপদ। এতে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ারও ভয়
থাকেনা।

১। লেবু একটি প্রাকৃতিক ব্লিচ। লেবুর রসের
সাথে সামান্য পানি মিশিয়ে একটি তুলার বলের
সাহায্যে তা মুখে ৩-৪ মিনিট ঘষুন। যদি সেনসিটিভ
স্কিন হয় তাহলে এর সাথে গোলাপ জল
মিশিয়ে নিবেন। সম্ভব হলে ১ চামচ লেবুর
রসের সাথে ২ চামচ ই ক্যাপসুল মিশিয়ে ত্বকে
লাগাতে পারেন। ভিটামিন ই ক্যাপসুল ত্বকের
জন্য খুবই উপকারী। এছাড়া একটানা ৭-১০ দিন
নিচের ফেস প্যাক ব্যবহার করতে পারেন।

২। ১ টেবিল চামচ লেবুর রস, ১ টেবিল চামচ
মধু, ১ টেবিল চামচ আমন্ড তেল, ২ টেবিল
চামচ দুধ একসাথে মিশিয়ে মুখে লাগান। শুকিয়ে
গেলে ধুয়ে ফেলুন। ব্রণ থাকা অবস্থায় দুধ
ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন।

৩। রাতে ঘুমানোর আগে মুখ ভালো করে
ধুয়ে মধু লাগান। সারারাত তা রেখে সকালে ঘুম
থেকে উঠে তা ধুয়ে ফেলুন। মধুর সাথে
দারুচিনি গুঁড়া মিশিয়ে শুধুমাত্র দাগের উপর লাগিয়ে
১ ঘণ্টা পর ধুয়ে ফেলুন। চাইলে সারারাতও
রাখতে পারেন।

৪। দিনে দুইবার অ্যালোভেরা জেল মুখে
লাগান এবং ৩০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এটি শুধুমাত্র
ব্রণের দাগই দূর করবে না, বরং আপনার ত্বকের
উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে এবং টানটান হবে।

৫। ২ টেবিল চামচ বেকিং সোডা ও সামান্য পানি
একসাথে মিশিয়ে মুখে ২-৩ মিনিট ঘষুন এবং
শুকানোর জন্য কয়েক মিনিট অপেক্ষা করুন।
এরপর মুখ ধুয়ে এর উপর কোনও
ময়েশ্চারাইজার ক্রিম বা অলিভ অয়েল লাগান।

৬। একটি লাল টমেটোর কিছু অংশ নিয়ে তার রস
নিন। এরপর তা শশার রসের সাথে মিশিয়ে নিন।
এই মিশ্রণটি মুখে লাগান। ১০ মিনিট পর ধুয়ে
ফেলুন। সপ্তাহে ৩ বার এই প্যাকটি লাগান।
ব্রণের দাগ দূর তো হবেই সেই সাথে
রোদে পোড়া দাগ দূর হয়ে ত্বকের
উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে।

৭। গ্রীষ্মকালে ত্বকে অতিরিক্ত তেল
তেল ভাবের ফলে ব্রণের সমস্যা দেখা
দেয়। এ ঝামেলা থেকে মুক্তি পেতে
মুখে মুলতানি মাটি পানি দিয়ে পেস্ট করে
লাগাতে পারেন। মুলতানি মাটি ত্বকের অতিরিক্ত
তেল নিঃসরণ বন্ধ করে সাহায্য করে।

৮। কাঁচা হলুদ এবং চন্দনকাঠের গুঁড়ো ব্রণের
জন্য খুবই কার্যকর দুটো উপাদান। সমপরিমাণ বাটা
কাঁচা হলুদ এবংচন্দন কাঠের গুঁড়ো একত্রে
নিয়ে এতে পরিমাণ মত পানি মিশিয়ে পেষ্ট তৈরি
করতে হবে। মিশ্রণটি এরপর ব্রণ আক্রান্ত
জায়গায় লাগিয়ে রেখে কিছুক্ষণ পর শুকিয়ে
গেলে মুখঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে
হবে। এই মিশ্রণটি শুধুমাত্র ব্রণদূর করার কাজ
করে না বরং ব্রণের দাগ দূর করতেও সাহায্য করে।

উপরের সবগুলো উপাদান ত্বকের দাগ দূরের
জন্য বেশ উপকারী। আপনার ত্বকের ধরন
অনুযায়ী যে উপাদান বেশি ভালো তা ব্যবহার
করুন এবং আপনার মূল্যবান ত্বকের যত্ন নিন,
বেশি করে পানি পান করুন, সুস্থ থাকুন।