Buy this theme? Call now 01710441771
Welcome To Abc24.GA
.May 26, 2018

কেন ব্রাজিলকে সাপোর্ট করি?


নিম্নে ব্রাজিলকে সাপোর্ট করার কিছু যৌক্তিক কারণ দর্শানো হলো...!
অনুগ্রহপূর্বক কষ্ট করে দেখে নিবেন...!

১. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দল ৫বার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছে- ১৯৫৮, ১৯৬২,১৯৭০,১৯৯৪, ২০০২।
২. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দল সবচেয়ে বেশি কনফেডারেশন কাপ জিতেছে (+হ্যাট্রিক সহ) -৪বার।
৩. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দল প্রত্যেকটা বিশ্বকাপ খেলেছে-(১৯৩০-২০১৪)।
৪. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দল ৭বার ফাইনালে উঠেছে+ ৫বার চ্যম্পিয়ন হয়েছে।
৫. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দল পরপর ৩বার ফাইনালে উঠেছে ১৯৯৪,১৯৯৮,২০০২+ ২বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।
৬. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দল সবচেয়ে বেশি গোল দিয়েছে- (২০০০+)।
৭. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দল সবচেয়ে বেশি ম্যাচ জিতেছে- (৬০০+)।
৮. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দলে রয়েছে ১০০০ গোল করা দুইজন কিংবদন্তি প্লেয়ার। * পেলে * রোমারিও।
৯. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দলে রয়েছে সর্ব কনিষ্ঠ ওয়ার্ল্ডকাপ জিতানো+৩টি বিশ্বকাপ জিতানো প্লেয়ার-পেলে।
১০. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দলে রয়েছে বিশ্বকাপে ২য় সর্বোচ্চ গোল করা প্লেয়ার-রোনালাদো (১৫গোল)।
১১. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দলে রয়েছে ফুটবলের শিল্পী রোনালদিনহো।
১২. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দলে রয়েছে ছোট পাসের খেলোয়াড় সক্রেটসি।
১৩. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দলে রয়েছে এক শৈল্পিক ফুটবলের নমুনা-সাম্বা।
১৪. ব্রাজিলই একমাত্র দল, যে দলে রয়েছে অগণিত প্রতিভার ছড়াছড়ি। যা কিনা অন্য কোন দলের ইতিহাসে পাওয়া যায় না।

★বলতে লজ্জা নেই ব্রাজিল ৭ টা গোল খাইছে কারন এইটা মিথ্যা না। ব্রাজিলের ৭ গোল খাওয়া যদি ৩য় পক্ষের কোনো সাফল্য হয় তাইলে কিছু করার নাই।

★ব্রাজিল ৭০০ গোল খাইলেও ব্রাজিলকেই সাপোর্ট করবে তার সাপোর্টারস। ইতিহাস আর ঐতিহ্যে ব্রাজিলের সমকক্ষ কেউ নেই।

হারলেও ব্রাজিল জিতলেও ব্রাজিল

★★★★~~~~~~~~~~~~~~~~★★★★
আর্জেন্টিনার কতগুলো আচুল মার্কা সাপোর্টার আছে তারা ব্রাজিলের নামে পাগলের মত কথা বলে। কারন ব্রাজিল ৭টা গোল খাইছে, আর নেইমার লাল কার্ড খাইছে তাই।

তাহলে আর্জেন্টিনার ইতিহাস শুনুন ও জানুন...?
কেন আমরা ব্রাজিল করি
বিশ্বকাপে ব্রাজিল আর আর্জেন্টিনার শক্তির তফাৎ।
• ব্রাজিল বিশ্বকাপ খেলছে ২০ বার । - আর্জেন্টিনা ১৬ বার । মানে ৪ বার চান্সই পাই নাই ।
• ব্রাজিল বিশ্বকাপ পাইছে ৫ বার - আর আর্জেন্টিনা ২ বার ।
• ব্রাজিল ফাইনাল খেলছে ৭ বার । - আর্জেন্টিনা ৪ বার ।
• ব্রাজিল যতবার ফাইনাল খেলছে আর্জেন্টিনা ততবার সেমিফাইনালও খেলে নাই ।
• ব্রাজিল একটানা দুইবার (৫৮,৬২) ও একটানা তিনবার ফাইনাল খেলছে (৯৪,৯৮,০২) । - আর্জেন্টিনা জীবনেও একটানা দুইবার ফাইনাল খেলে নাই ।
• ব্রাজিলের পেলে আর রোমোরিও এর ১০০০+ গোল করার কৃতিত্ব আছে । - আর্জেন্টিনার ম্যারাডোনা আর মেসির গোল যোগ করলেও ১০০০ হয় না ।
• ব্রাজিলেরর রোলানদোর বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ ১৫ গোল করার রেকর্ড আছে । - আর্জেন্টিনার মেসি ও ম্যারাডোনার গোল যোগ করলে ৯টা হয় ।
• ব্রাজিল গত ২৩ বছরে ১৯ বছর ফিফা রেংকিং প্রথম ছিল। - আর আর্জেন্টিনা ছিল ৯ মাস ।
• ব্রাজিল গত চব্বিশ বছরে কাপ পাইছে ১৫ টা । - আর্জেন্টিনা একটাও পাই নাই।
• ব্রাজিলের ৫ টা খেলোয়াড় ৮ বার ফিফা বর্ষসেরা হইছে (রোনালদো ৩ বার, দিনহো ২ বার,কাকা,রোমারি ও, রিভালদো ১ বার করে) । - আর্জেন্টিনার একমাত্র খেলোয়াড় মেসি । এছাড়া এমন কোনো আর্জেন্টাইন নাই যে প্রথম তিনে ছিল ।
তবুও আর্জন্টিনাই নাকি সর্বকালের সর্বসেরা টিম..... কেউ আছিস ভাই??? আর্জেন্টিনার ভক্ত গুলারে কেও ফরমালিন খাওয়াইয়া মাইরালা ??
১. আর্জেন্টিনা ২০০৯ সালে বলভিয়ার সাথে ৬-১ গোলে হেরেছে। যা কোনো দলের মধ্যে পরে না। কিন্তু ব্রাজিল জার্মানির সাথে ৭ টা গোল খেলেও ১ টা গোল দিতে তারা সক্ষম হয়েছে।ব্রাজিল ২৯ মিনিটে ৫ গোল খেলেও আর্জেন্টিনা যে ২৫ মিনিটে ৬ গোল খায়। তা কিন্তু আর্জেন্টিনার আচুল মার্কা সাপোর্টাররা বলতে লজ্জা পায়। এমনকি তাদের অনেক সার্পোটার এটা জানেই না।
২. ১৯৫৭ সালে কলম্বিয়ার কাছে ৬-০ গোলে হারে।
৩. ২০১০ সালে জার্মানির সাথে ৪-০ ব্যবধানে হেরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয়।
৪. ১৯৯৩ সালে স্লোভাকিয়ার কাছে ৬-০ গোলে হারে।
৫. ১৯৫৯ সালে উরুগুয়ের সাথে ৮-০ গোলে হারে এই আর্জেন্টিনা।
৬. খেলা শুরুর ৪৭ সেকেন্ডের মধ্যে অভিষেক ম্যাচে মেসি লাল কার্ড দেখে ২০০৫ সালে। যা সত্যি লজ্জাজনক।
৭. সুইডেনের সাথে ৫-১ গোলে হারে এই আর্জেন্টিনা।
৮. পেরুর সাথে ৬-০ গোলে এবং ইকুয়েডরের সাথে ৫-৩ গোলে হারে এই আর্জেন্টিনা।
তাই আর্জেন্টিনার আচুল সাপোর্টারদের বলতেছি, ইতিহাস না জেনে ব্রাজিলের সাথে আর্জেন্টিনার তুলনা করতে আসবেননা প্লিজ।